সবুজ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের জাতীয় নাট্যোৎসব ৫ম নাট্যসম্পর্ক ২০২১

শেয়ার করুন

সবুজ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের জাতীয় নাট্যোৎসব ‘৫ম নাট্যসম্পর্ক ২০২১’ এর দ্বিতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হল ১৯শে নভেম্বর থেকে ২৪শে নভেম্বর অব্দি। দুই পর্যায় অনুষ্ঠিত হল এই উৎসব । ১৯ থেকে ২১ শে নভেম্বর নৈহাটি ঐকতান মঞ্চে এবং ২৪শে নভেম্বর কোলকাতা গিরিশ মঞ্চে ।

উৎসবের উদ্বোধক ছিলেন আন্তর্জাতিক নাট্যব্যক্তিত্ব নাটককার, নির্দেশক শ্রী প্রবীর গুহ। এই বছর ‘সবুজ সম্মান ২০২১’ প্রাপক ছিলেন নাট্য জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র শ্রী শুভদীপ গুহ, শ্রী দেবব্রত ব্যানার্জী, শ্রী দেবাশীষ দত্ত এবং শ্রী সন্তু সাধুখাঁকে। চার দিন ব্যাপী এই উৎসবে অভিনীত হয় মোট ৭টি নাটক; এ.এল.টি প্রযোজিত ‘সোয়াচান পাখির বাসা’ নির্দেশনায় শুভদীপ গুহ, বারাসাত কাল্পিকের ‘পাতার বাঁশি’ নির্দেশনায় দেবব্রত ব্যানার্জী, কোলকাতা নাট্যিকের ‘শাস্তি কার’ নির্দেশনায় প্রতাপ মন্ডল, আসানসোল চর্যাপদের ‘এমনও হয়’ নির্দেশনায় রুদ্র প্রসাদ চক্রবর্তী, ইফটা কোলকাতার ‘কানেক্সান’ নাট্যরচনা দেবাশীষ দত্ত, সন্তোষপুর অনুচিন্তনের ‘কাবুলকে পরিন্দে’ এবং সবুজের ‘মিরর’ নির্দেশনায় রাজেশ দেবনাথ।

২৪শে নভেম্বর, অনুষ্ঠানের শেষ দিনের সূচনা হয় একটি নাট্যবিষয়ক সেমিনারের মাধ্যমে। সেমিনারের বিষয় ছিল ‘নাট্যচর্চায় নাট্যপত্রের ভূমিকা ও গ্রহণযোগ্যতা’। সঞ্চালক ছিলেন থিয়েটারি মাসকাবারি ও কলকাতা থিয়েটার গাইডের সম্পাদক তমাল মুখোপাধ্যায়, বক্তা ছিলেন ভাবনা থিয়েটার পত্রিকার সম্পাদক, নাট্য সমালোচক অভিক ভট্টাচার্য, ভীমরতি দুর্গাপুরের নির্দেশক ও নাট্য সমালোচক দীপঙ্কর সেন, ইফটার নির্দেশক দেবাশীষ দত্ত, থিয়েটার শাইনের নির্দেশক শুভজিৎ বন্দোপাধ্যায় এবং বারাসাত কাল্পিকের নির্দেশক দেবব্রত বন্দোপাধ্যায়। নাট্য পত্রের ভবিষ্যৎ ও তার সমস্যা নিয়ে বক্তব্য রাখেন বক্তারা, তাঁদের কথায় উঠে আসে থিয়েটারে নাট্যপত্রের প্রয়োজনীয়তা ও সমসময়ে তার পরিবর্তনের কথা।

‘৫ম নাট্যসম্পর্ক ২০২১’ এর প্রথম পর্বের সূচনা হয়েছিল অনলাই নাট্যোৎসব দিয়ে। এই পর্যায়ে ৩৩টি নাটক প্রদর্শিত হয় যার মধ্যে ৮টি ভিন্ন দেশের নাটক ছিল। নাট্যমোদী মানুষ আগ্রহের সাথে অংশগ্রহণ করেন এই উৎসবে।

শেয়ার করুন