সবুজ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা দিবস ২০২১

শেয়ার করুন

সবুজ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র তাদের নাট্যযাপনের ১৬ বছর সম্পূর্ণ করে ১৭ বছরে পা দিলো। গত ৮ আগষ্ট ২০২১, দমদম থিয়েপেক্সে অনুষ্ঠিত হলো সবুজের ১৭তম প্রতিষ্ঠাদিবস। অনুষ্ঠানের সূচনা হলো নাট্য বিষয়ক আলোচনা দিয়ে, বিষয় ছিল ‘নতুন স্পেসের ভিড়ে থিয়েটারি বদল’। বক্তা ছিলেন নাট্য সমালোচক ও গবেষক আশিস গোস্বামী ও ইফটা-র নির্দেশক দেবাশিস দত্ত। সঞ্চালনায় ছিলেন থিয়েটার শাইন-এর নির্দেশক শুভজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। আলোচনার মধ্যে দিয়ে উঠে এলো এক প্রাসঙ্গিক ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় – নতুন স্পেস তৈরির কারণ ও আগামীর থিয়েটার সেই নব নির্মিত স্পেসে। আশিস গোস্বামী উল্লেখ করলেন যে বর্তমানে ভিন্ন নামে থিয়েটারি বিভাজনের প্রয়োজনীয়তা নেই। প্রসেনিয়াম, নন-প্রসেনিয়াম, থার্ড, বা অন্তরঙ্গ এইভাবে ভাগ করা অর্থহীন। সারা বিশ্ব জুড়ে এই ধারণা বদলে গছে বহু দিন আগে। এখন সবই থিয়েটার বা পারফরমেন্স। আবার পাশাপাশি অন্তরঙ্গ নাটক মানেই তার প্রস্তুতি বা আয়োজন কম হবে এই ধারণাও বদলাতে হবে। দেবাশিস স্পেস ভিত্তিক থিয়েটার নিয়ে তার অভিজ্ঞতার কথা বলেন।

সেমিনারের পর সবুজের নতুন নাট্য ‘গল্পটা এইটুকু ছিল’ অভিনীত হয়। স্বল্প দৈর্ঘ্যের এই নাট্যে অভিনয় করেন রাজেশ দেবনাথ, রাজর্ষি রায়চৌধুরী, পারমিতা ঘোষ ও প্রীতম সমাদ্দার। আলোয় ছিলেন সৌভিক মোদক, আবহে নবমিতা ঘোষ ও রূপপসজ্জায় পারমিতা। খুব সহজ সরল উপস্থাপনা ও শুধুমাত্র সংলাপের মাধ্যমে স্মৃতিচারণ এবং ফ্ল্যাশব্যাকের ব্যবহারে নাটকের বুননকে আকর্ষণীয় করে তুলেছেন নাট্যকার ও নির্দেশক রাজেশ দেবনাথ। রাজর্ষি রায়চৌধুরীর সাবলীল অভিনয় উল্লেখনীয়। পারমিতা আর প্রীতমও তাদের চরিত্রের প্রতি বিশ্বস্ত থেকেছেন।

অনুষ্ঠানের শেষ আকর্ষণ ছিল ভাস্কর মুখার্জি, নবমিতা ঘোষ ও সৌরজিৎ চৌধুরীর গানের অনুষ্ঠান। বাদ্যন্ত্র সঙ্গতে ছিলেন সৌহৃদ রায় ও সৌমেন। ওই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়েই দ্বিতীয় লকডাউনের পর মঞ্চে আবার ফিরে এল সবুজ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র।

শেয়ার করুন